জাতীয়

সরকারি স্কুলে ভর্তি: আসন প্রতি ১০ শিক্ষার্থীর আবেদন

  দেশান্তর প্রতিবেদন ৮ জানুয়ারি ২০২১ , ৫:৩৫:১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: সারাদেশে সরকারি স্কুলে ৮০ হাজার আসনের বিপরীতে ভর্তির জন্য ৫ লাখ ৭৩ হাজার ৩১১ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেছে। হিসেব অনুযায়ী প্রতি আসনের বিপরীতে আবেদন পড়েছে ১০টিরও বেশি। আগামী ১১ জানুয়ারি কেন্দ্রীয়ভাবে লটারি অনুষ্ঠিত হবে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের উপপরিচালক (মাধ্যমিক) মোহাম্মদ আজিজ উদ্দিন বলেন, ‘দ্বিতীয় দফায় বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) বিকাল ৫টা পর্যন্ত আবেদন করতে করেছে ভর্তিচ্ছুক শিক্ষার্থীরা। এতে মোট আবেদন পড়েছে ৫ লাখ ৭৩ হাজার ৩১১টি। হাইকোর্টের নির্দেশে ফের আবেদন নেওয়ার পর নতুন করে আবেদন পড়েছে ৭৯ হাজার ২৬টি। পূর্বঘোষিত সময় অনুযায়ী ১১ জানুয়ারি লটারি অনুষ্ঠিত হবে। যারা লটারিতে সুযোগ পাবে তারা এক সপ্তাহ সময় পাবে ভর্তির জন্য।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দেশের সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে ভর্তির জন্য ১৫ ডিসেম্বর সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে ২৭ ডিসেম্বর বিকাল ৫টা পর্যন্ত আবেদন নেওয়া হয়। ওই সময় মোট আবেদন পড়েছিল ৪ লাখ ৯৫ হাজার ২৮৫টি।

বয়স সংক্রান্ত জটিলতায় আবেদন করতে না পারা শিক্ষার্থীদের পক্ষে একজন হাইকোর্টের রিট করেন। ওই রিটের নির্দেশনা অনুযায়ী ভর্তির সময় আরও দশ দিন এবং যেকোনও বয়সের শিক্ষার্থীরা প্রথম ও ষষ্ঠ শ্রেণিতে আবেদন করার সুযোগ পায়।

উচ্চ আদালতের নির্দেশনার পর সরকারি স্কুলে ভর্তির আবেদন ফের উন্মুক্ত করে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর। বয়সের কারণে এর আগে যেসব শিক্ষার্থী প্রথম থেকে নবম শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করতে পারেনি তারা ৭ জানুয়ারি বিকাল ৫টা থেকে আবেদন করছে।

যেভাবে হবে লটারি

হাইকোর্টের আদেশে স্থগিত হওয়া স্কুলে ভর্তির লটারি আগামী ১১ জানুয়ারি কেন্দ্রীয়ভাবে হবে। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে এ লটারি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন। সফটওয়্যারের মাধ্যমে হওয়া এ লটারি অনুষ্ঠান শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শিক্ষকরা দেখতে পারবেন।

এছাড়া স্কুল প্রধানরা তার আইডি দিয়ে এ লটারিতে অংশ নিতে পারবেন। পরবর্তীতে টেলিটক নিজ নিজ স্কুলের ফলাফল প্রতিষ্ঠানের মেইলে পাঠিয়ে দেবে। প্রতিষ্ঠান সেটি প্রিন্ট করে স্কুলে নোটিশ বোর্ডে টানিয়ে দেবে।

বিগত সময়ের মতো এবারও স্কুলগুলোকে তিনটি গুচ্ছ বা গ্রুপ (এ, বি এবং সি) করে ভর্তির কার্যক্রম পরিচালিত হবে। ভর্তি আবেদনের সময় একজন শিক্ষার্থী একটি গুচ্ছের পাঁচটি বিদ্যালয়ে পছন্দক্রম অনুসারে ভর্তির জন্য আবেদন করেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরও খবর 12

Sponsered content