বাংলাদেশ

ভুতুড়ে বিদুৎ বিলে দিশে হারা চা বিক্রেতা, ১ মাসে ১২ হাজার টাকা বিল

  দেশান্তর প্রতিবেদন ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ , ৮:৪৯:০৯

মেহেরপুর প্রতিনিধিঃ মেহেরপুরের গাংনী পল্লী বিদ্যুতের সাব জোনাল অফিসের ভুতুড়ে বিলে দিশেহারা হামিদুল নামের চা বিক্রেতা। চা বিক্রেতা হামিদুল ইসলাম ছাতিয়ান কামার পাড়ার বাসিন্দা এবং বাজারে তার একটি ছোট্ট চায়ের দোকান রয়েছে।

হামিদুল ইসলামের অভিযোগ, আমি একটি ছোট্ট চায়ের দোকানদার। সে গত আগস্ট মাস থেকে এ পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিলের কাগজ দেখে বলে আমার বাড়ির বিচারে প্রতি মাসে ৪শত থেকে ৫শত টাকা বিল আসে। হঠাৎ করে জানুয়ারি মাসে আমার নামে বিল আসে ১২ হাজার টাকা। আমি অফিসে গিয়ে ডিজিএম কম স্যারের কাছে অভিযোগ দিলে তিনি অফিসের এক নারী সদস্যকে ডেকে কী যেন বলল। ওই ওই নারী সদস্য আমাকে একটি ৫ হাজার টাকার বিল এর কাগজ হাতে ধরিয়ে বলল তিন মাসের কিস্তি করে পুরো বিলটি শোধ করে দিবেন।
আমি কিভাবে এই বিল পরিশোধ করব তা ভেবে পাচ্ছি না।

গাংনী পল্লী বিদুৎ সাব জোনাল অফিসের ভুতুড়ে বিদুৎ বিলে দিশে হারা চা বিক্রেতা, ১ মাসে ১২ হাজার টাকা বিল

গাংনী পল্লী বিদুৎ সাব জোনাল অফিসের ভুতুড়ে বিদুৎ বিলে দিশে হারা চা বিক্রেতা, ১ মাসে ১২ হাজার টাকা বিল

এ সময় অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, এই অফিসার যোগদানের পর থেকে বিভিন্ন রকম সমস্যা ও গ্রাহক হয়রানি হচ্ছে। এই গ্রাহক হয়রানির সুষ্ঠু সমাধানের দাবি জানান তারা।

বামন্দী সাব জোনাল অফিসের ডিজিএম কম শামীম হোসেন মিটার রিডার এর ঘাঁড়ে দোষ চাপিয়ে দায় এড়িয়ে যান তিনি।

বামুন্দী বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবু বিষয়টি মিমাংসা করার আশ্বাস দেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরও খবর 34

Sponsered content