বাংলাদেশ

ছাত্রলীগ পরিচালিত হোক মননে-সেবায়; পেশীশক্তিতে নয়!’ – তৃণমূলের ছাত্রলীগ নেতা মনজেল

  দেশান্তর প্রতিবেদন ২২ জানুয়ারি ২০২১ , ১১:০৬:১৬

ছাত্রলীগ পরিচালিত হোক মননে-সেবায়; পেশীশক্তিতে নয়!' - তৃণমূলের ছাত্রলীগ নেতা মনজেল

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার দুর্গম এলাকা রূপবাটি (তৃণমূলের) সাহসী সৎ, নির্ভীক ও মেধাবী ছাত্রলীগ নেতা হলেন মনজেল। ভবিষ্যতে তিনি সিরাজগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগে নেতৃত্ব দিতে আগ্রহী। তৃণমূলের ছাত্রলীগ নেতা মনজেলের ভাবনায় ছাত্রলীগের রাজনীতি, দায়, দায়িত্ব, কর্তব্য, দেশ ও দশের সেবা শীর্ষক আলাপকালে নানা বিষয় উঠে এসেছে। এ প্রসঙ্গে একান্ত সাক্ষাতকারে তিনি জানিয়েছেন, “ক্ষমতা জিনিসটা আপেক্ষিক। একজন ছাত্রলীগ নেতাকে প্রথমে নিজেকে নিজে ক্ষমতাশালী করতে হবে। সেটা কিভাবে? প্রথমে আমাকে চিন্তা করতে হবে আমি একজন মানুষ। আর একজন মানুষ হিসেবে আমার যে অধিকারটুকু-পরিবার, সমাজ, রাষ্ট্রের কাছে আমি প্রাপ্য তা আমাকে পেতে হবে। আবার দেশ দশের পাওনাও সঠিকভাবে দিতে হবে। আমি যদি মানুষ হিসেবেই নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে না পারি তাহলে আমার জন্য যতই আইন করে দেয়া হোক না কেন কোন কিছুই কাজে আসবে না।
ক্ষমতা বা অধিকার কেউ কাউকে দিয়ে যায় না। রাষ্ট্র তার দায়িত্ব ও কর্তব্যের জায়গা থেকে কিছু আইন প্রণয়ন করে থাকে। অধিকার যেমন আদায় করে নিতে হয়।

বক্তৃতা-বিবৃতিতে শুধু পুরুষ বা ছাত্রলীগকে ক্ষমতায়িত করলে হবে না পাশাপাশি সমাজকেও বদলাতে হবে। সমাজকে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে মানুষের উপযোগী করে গড়ে তুলতে হবে।

একজন পুরুষ কিন্তু বহুরূপী। তাদের বিভিন্নভাবে উপস্থাপন করা যায় একসময় শিশু অর্থাৎ ছেলেশিশু, ছেলে, কিশোর ছেলে, তরুণ, স্বামী, বাবা, মাঝবয়সী পুরুষ এবং বৃদ্ধা।

এই যে ধাপগুলো প্রত্যেকটি ধাপের আলাদা আলাদা পরিচয় এবং আলাদা আলাদা সামাজিক অবস্থান রয়েছে।
আমরা যদি আমাদের ভিতরের শক্তিকে জাগিয়ে তুলে মেরুদন্ড সোজা করে বলতে পারি আমরা এই সমাজের। আমাদের দ্বারা এই সমাজ গড়ে উঠেছে। এই পৃথিবীর, এই সভ্যতার সমান অংশীদার আমরাও। প্রাগৈতিহাসিক যুগ থেকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে নারীদের পাশে পুরুষেরা ছিল বলেই সমাজ গড়ে উঠেছে সভ্যতা এগিয়ে গেছে। এই সমাজের নির্মাতা অংশীদার হিসেবে তাই প্রত্যেকটি পুরুষের রয়েছে মানুষ হিসেবে আত্মপরিচয়। রয়েছে অধিকার আর সেই অধিকার টুকু প্রাপ্য হলেই নারী-পুরুষের বৈষম্য দূর হবে।

ছাত্ররাজনীতির নেতৃত্বের জন্য আজও রাজনীতি একটি বড় চ্যালেঞ্জ। রাজনীতির মাঠে ছাত্রলীগ এখনো তার সঠিক অবস্থান দেয়া হয় না। রাজনীতি মাসেল পাওয়ার নয় সেটা এখনো অনেক মানুষের মধ্যেই বোধ জাগ্রত হয়। তাই শারীরিক গঠনের ভিন্নতার কারণে শুধু রাজনীতি নয় সব ক্ষেত্রেই ছাত্রলীগকে ভিন্নভাবে চিন্তা করা হয় এবং উপস্থাপন করা হয়।

আমরা ভুলে যাই যে রাজনীতি করতে হয় মেধা দিয়ে রাজনীতি করতে হয় মনন দিয়ে, শরীর দিয়ে নয়।

রবীন্দ্রনাথের কথায় শেষ করতে হয় “মানুষ তো সবার ঘরে জন্মায় মনুষত্ব সবার হয় না।” তাই আমাদের সমাজে মনুষ্যত্ব বোধ জাগ্রত করতে হবে।”

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরও খবর 34

Sponsered content