fbpx
সংবাদ শিরোনাম
ফল প্রকাশে অটোমেশন প্রক্রিয়ার উদ্বোধন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ: ১ জনকে হলত্যাগ ও ২ জনের ছাত্রত্ব বাতিলের সুপারিশ শার্শায় ফসলি জমির মাটি বিক্রির সিন্ডিকেট বেপরোয়া, জড়িত খোদ ইউপি সদস্যরা পাইকগাছায় ঘূর্নিঝড় রেমালের প্রভাবে নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি : মারাত্মক ঝুঁকিতে ২টি ভেড়িবাঁধ স্বতন্ত্র বেতনস্কেল প্রবর্তনের দাবিতে নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন রাবিতে প্রথমবারের মতো ‘ইনোভেশন শোকেসিং’ অনুষ্ঠিত জবির ফিচার, কলাম অ্যান্ড কনটেন্ট রাইটার্সের নেতৃত্বে মুনতাহা-শাহরিয়ার উচ্চশিক্ষা নিয়ে রাবিতে সেমিনার অনুষ্ঠিত শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবনী উদ্যোগের জন্য নির্বাচিত দপ্তর-সংস্থার মাঝে শিল্পমন্ত্রীর সনদ বিতরণ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বজনীন পেনশন নীতিমালা প্রত্যাহারের দাবিতে শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

সহিংসতায় পুত্রহারা বাবাকে রমজানে প্রয়োজনী পণ্য উপহার দিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান জনাব মনিরউজ্জামান

                                           
এইচ এম জহিরুল ইসলাম মারুফ
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টারঃ

ঝালকাঠি জেলাধীন রাজাপুর উপজেলার বারবার নির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বড়ইয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সনামধন্য প্রতিষ্ঠিতা অধ্যক্ষ মোঃ মনিরউজ্জামান ২৩ এপ্রিল ২০২১ ইং তারিখ সকাল ১১ ঘটিকার সময় চর পালট গুচ্ছ গ্রামের বাসিন্দা, সহিংসতায় পুত্রহারা বাবা মোঃ সোহরাব হোসেনকে রমজানে ইফতার সামগ্রীসহ নিত্য প্রয়োজনী পণ্য উপহার দিলেন।

উল্লেখ থাকে যে, ২০১৪ ইং সনের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে উপজেলার সাতুরিয়া ইউনিয়নের কদুতলা নামক স্থানে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত হয় উক্ত সোহরাবের পুত্র রিপন, রিপনের বাবা জীবিত থাকতেও রিপন হত্যা মামলার বাদী হয় তাহার চাচাতো দাদা তোফাজ্জেল হোসেন, পরবর্তীতে মামলা নিঃস্পত্বি, দলীয় সহযোগিতা, উপজেলা চেয়ারম্যান কর্তৃক সহযোগিতা ও সরকারী সহযোগিতাসহ সকল সহযোগিতা/সুবিধা রিপনের বাবাকে বঞ্চিত করে মামলার বাদী চাচাতো দাদা তোফাজ্জেল অন্যায় ভাবে ভোগ করেন। এমনকী বিভিন্ন কৌশলে রিপনের বাবা সোহরাবকে এলাকা ত্যাগ করতে বাধ্য করেন মামলার বাদী চাচতো দাদা, সোহরাব প্রায় এক বছর বরিশালের গৌরনদী আত্মগোপনে থাকার পার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মনিরউজ্জামা’র নিকট এসে পরিচয় দেয়।

সে-ই থেকেই দয়াবান দানশীল চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান পুত্র হারানো পিতাকে আশ্রয়-প্রশ্রয় ও সাহায্য-সহযোগিতা করে আসছেন।

এছাড়াও সাতুরিয়ায় নিজ বাড়িতে থাকা জীবনের ঝুঁকি মনে করে উপজেলা প্রশাসনের কাছে সুপারিশ সাপেক্ষে বড়ইয়া ইউনিয়নের চর পালট গুচ্ছ গ্রামে একখানা সরকারী বসত গৃহের (জমিসহ) ব্যবস্থা করে দেয়। বর্তমানে সোহরাব তার পরিবার নিয়ে সেখানেই বসবাস করছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগ থেকে পড়ুন