fbpx
সংবাদ শিরোনাম
ফল প্রকাশে অটোমেশন প্রক্রিয়ার উদ্বোধন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ: ১ জনকে হলত্যাগ ও ২ জনের ছাত্রত্ব বাতিলের সুপারিশ শার্শায় ফসলি জমির মাটি বিক্রির সিন্ডিকেট বেপরোয়া, জড়িত খোদ ইউপি সদস্যরা পাইকগাছায় ঘূর্নিঝড় রেমালের প্রভাবে নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি : মারাত্মক ঝুঁকিতে ২টি ভেড়িবাঁধ স্বতন্ত্র বেতনস্কেল প্রবর্তনের দাবিতে নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন রাবিতে প্রথমবারের মতো ‘ইনোভেশন শোকেসিং’ অনুষ্ঠিত জবির ফিচার, কলাম অ্যান্ড কনটেন্ট রাইটার্সের নেতৃত্বে মুনতাহা-শাহরিয়ার উচ্চশিক্ষা নিয়ে রাবিতে সেমিনার অনুষ্ঠিত শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবনী উদ্যোগের জন্য নির্বাচিত দপ্তর-সংস্থার মাঝে শিল্পমন্ত্রীর সনদ বিতরণ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বজনীন পেনশন নীতিমালা প্রত্যাহারের দাবিতে শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

শিশু-বৃদ্ধ-অসুস্থদের মসজিদে না আসার অনুরোধ 

                                           
এইচ এম জহিরুল ইসলাম মারুফ
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১ জুলাই, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টারঃ করোনার বিদ্যমান পরিস্থিতিতে শিশু, বৃদ্ধ, অসুস্থ ব্যক্তি এবং তাদের সেবায় নিয়োজিতদের নামাজের জন্য মসজিদের জামাতে অংশগ্রহণ না করার অনুরোধ জানিয়ে নির্দেশনা জারি করেছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। একইসঙ্গে যারা জামাতে অংশ নেবেন তাদের অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দাঁড়াতে বলা হয়েছে।

সারা দেশে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর হার বৃদ্ধি পাওয়ায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ আরোপিত বিধিনিষেধের আলোকে বুধবার (৩০ জুন) ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হয়। এই নির্দেশনা আজ বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) থেকে কার্যকর হবে।

ওই নির্দেশনায় বলা হয়, করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণের কারণে সারাদেশে মৃত্যুর হার অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জারি করা বিধিনিষেধের প্রেক্ষিতে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে প্রার্থনা এবং মসজিদসমূহে জামাতের নামাজের জন্য আবশ্যিকভাবে নিচের শর্তসমূহ পালনের জন্য অনুরোধ করা হলো।শিশু-বৃদ্ধ-অসুস্থদের মসজিদে না আসার অনুরোধ 

নির্দেশনাগুলো হলো— মসজিদের প্রবেশের পথে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা হাত ধোয়ার ব্যবস্থাসহ সাবান-পানি রাখতে হবে এবং আগত মুসল্লিদের অবশ্যই মাস্ক পরে মসজিদে আসতে হবে, প্রত্যেককে নিজ নিজ বাসা থেকে অজু করে ও সুন্নাত নামাজ ঘরে আদায় করে মসজিদে আসতে হবে এবং অজু করার সময় কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে, মসজিদে কারপেট বিছানো যাবে না, পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের পূর্বে সম্পূর্ণ মসজিদ জীবানুনাশক দ্বারা পরিষ্কার করতে হবে, মুসল্লিগণ প্রত্যেকে নিজ নিজ দায়িত্বে জায়নামাজ নিয়ে আসতে হবে, কাতারে নামাজে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে হবে।

শিশু-বৃদ্ধ-অসুস্থ ব্যক্তি এবং তাদের সেবায় নিয়োজিতরা জামাতে অংশগ্রহণ করা হতে বিরত থাকবে, সংক্রমণ রোধ নিশ্চিত করার জন্য মসজিদের অজুখানায় সাবান ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে, মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার করা যাবে না— ওই নির্দেশনায় উল্লেখ করা হয়

করোনা মহামারি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য নামাজ শেষে মহান রাব্বুল আলামিনের দরবারে খতিব, ইমাম ও মুসল্লিগণ দোয়া করবেন এবং সম্মানিত খতিব, ইমাম এবং মসজিদ পরিচালনা কমিটি বিষয়গুলো বাস্তবায়ন নিশ্চিত করবেন বলে ওই নির্দেশনায় উল্লেখ করা হয়।

নির্দেশনায় আরও বলা হয়, অন্যান্য সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও উপাসনালয়ে প্রবেশের ক্ষেত্রে মাস্ক পরিধান, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও সাবান দিয়ে হাত ধোয়াসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে।

উল্লিখিত নির্দেশনা লঙ্ঘিত হলে স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগ থেকে পড়ুন