fbpx
সংবাদ শিরোনাম
মেহেরপুরের সাহিত্যিক মোঃ নুর হোসেন শব্দ কথায় সৃষ্টি করে চলেছেন সাহিত্যের নানান আদিত্য তাকবিরে তাশরিক কখন কিভাবে? সূনয়না বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি জয়নাল,সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত  Making The World A Better Place স্লোগানে তরুণ নেতৃত্ব তৈরি করছে  ইউপিজি ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের উন্নয়নে নতুন করে পদক্ষেপ নেওয়ার সময় এসেছে- শিল্পমন্ত্রী বেনাপোলে দুই দেশের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের কর্মশালা অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ-ভারত বন্ধুত্ব সকল স্বার্থের উর্ধ্বে – পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী পাইকগাছায় উপজেলা নির্বাচনে বিজয়ী হলেন যারা উত্তরা আজমপুরে ডিএনসিসি’র উচ্ছেদ অভিযান; নেতৃত্বে মেয়র মোঃ আতিকুল ইসলাম

বাগেরহাটে করোনা আক্রান্তে রেকর্ড, একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্ত ১৭৭ মৃত্যু ৫

                                           
নিউজ ডেস্ক
প্রকাশ : রবিবার, ২৭ জুন, ২০২১

বাগেরহাট প্রতিনিধিঃ বাগেরহাটে করোনা মহামারি করোনাভাইরাসে একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্ত ১৭৭, মৃত্যু ৫। গত ২৪ ঘন্টায় বাগেরহাট জেলায় ৪১৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে ১৭৭ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এসময় করোনা আক্রান্তে পাঁচ জন মারা গেছেন। এর আগে বাগেরহাটবাসী একদিনে এত মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা দেখেনি। এই নিয়ে বাগেরহাটে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৫৯ জন।

এ পর্যন্ত বাগেরহাটে করোনা ভাইরাসে মোট মারা গেছেন ৭৯ জন। আক্রান্তদের মধ্যে ২ হাজার ১৯৯ জন সুস্থ হয়েছেন। বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল ও বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৮৬০ জন। রোববার (২৭ জুন) দুপুরে বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কে এম হুমায়ুন কবির এসব তথ্য জানিয়েছেন। আক্রান্তের সংখ্যার দিক দিয়ে সবার উপরে রয়েছে বাগেরহাট সদর উপজেলা। এই উপজেলায় ২১২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১১১ জনের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এরপরেই রয়েছে ফকিরহাট। এই উপজেলায় ৫০ জনের নমুনা পরিক্ষায় ১৯ জনের শরীরে শনাক্ত হয়েছে।

এছাড়া মোংলায় ১৪, কচুয়ায় ১, মোল্লাহাটে ১০, শরণখোলায় ৭ এবং মোরেলগঞ্জে ১৫ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মৃতদের মধ্যে মোংলা ১ জন ও রামপাল উপজেলায় ১ জন এবং বাগেরহাট সদর উপজেলায় ৩ জন রয়েছে।বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কে এম হুমায়ুন কবির বলেন, গতকাল শনাক্তের হার কম ছিল। কিন্তু গেল ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ও শনাক্তের হার দুটোই বেড়েছে। ৪১৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৭৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। সেই হিসেবে শনাক্তের হার প্রায় ৪৩ শতাংশ। মৃত্যু হয়েছে পাঁচজনের।

তিনি আরও বলেন, এত শনাক্ত ও মৃত্যুর পরে মানুষ তেমন সচেতন হচ্ছে না। তারপরও আমরা চেষ্টা করছি মানুষের স্বাস্থ্য বিধি নিশ্চিত করার। এজন্য মাইকিং, মাস্ক বিতরণ, ভ্রাম্যমান আদালত ও পুলিশের তৎপরতা রয়েছে। তবে বাগেরহাট জেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে জনসাধারনের মধ্যে জেলা প্রশাসন ঘোষিত লকডাউন মানতে এবং স্বাস্হ্য বিধি মানতে চরম অনীহা বিরাজ করছে ।।।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগ থেকে পড়ুন