fbpx
সংবাদ শিরোনাম
নরসিংদী রায়পুরার মির্জাপুর ইউনিয়নে বিট পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ পুলিশ দেশের প্রয়োজনে সর্বোচ্চ নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালনের প্রমাণ দিতে পেরেছে : মন্ত্রিপরিষদ সচিব বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে জবি বাংলা বিভাগ ছাত্রলীগের আন্তর্জাতিক সেমিনার রাবির ভোলা জেলা ছাত্রকল্যাণ সমিতির নেতৃত্বে জুলিয়া-মমিন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির নেতৃত্বে তুষার-শফিক চীনা ঐতিহ্যের আলিঙ্গন পেলেন রাবি শিক্ষার্থীরা গাংনীতে অবৈধভাবে বাড়ির প্রবেশ পথ বন্ধ ও হুমকির ঘটনায় থানায় অভিযোগ চীনা ঐতিহ্যের আলিঙ্গন পেলেন রাবি শিক্ষার্থীরা শিক্ষাখাতে ট্রাব স্মার্ট অ্যাওয়ার্ড পেলেন মাহফুজুর রহমান বনজ সম্পদের টেকসই ব্যবহার নিশ্চিতে ২য় জাতীয় বন জরিপ করা হচ্ছে -পরিবেশ ও বনমন্ত্রী সাবের চৌধুরী
নোটিশ :

জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘দৈনিক দেশান্তর’ এ সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। এজন্য দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতে আগ্রহীদের কাছ থেকে আবেদন আহবান করেছে প্রতিষ্ঠানটি। আগ্রহীদের ই-মেইলে সিভি পাঠানোর জন্য বলা হয়েছে। সিভি পাঠানোর ই-মেইল: dainikdeshantar@gmail.com  অথবা ০১৭৮৮-৪০৫০৯১ এ যোগাযোগ করুন।

পাবনায় শেষ বিকেলে বসন্ত বরণ 

                                           
শাবলু শাহাবুদ্দিন
প্রকাশ : সোমবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

সারাদিনে পাবনার কোথাও বোঝা যায় নি আজ কোন বিশেষ একটি দিন। বেলা তিনটার পরে হালকা হালকা বোঝা যায় আজকে বছরে বিশেষ কোন একটি দিন। বসন্ত বরণ। কারো মাথায় ফুলের তোরা। কেউবা শাড়িতে। ছেলেরা পাঞ্জাবি পরে ক্রম ক্রমে জোর হতে থাকে পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ মাঠে। উৎসবে পরিণত হতে বেশি সময় লাগে না। বেলা চারটার মধ্যে লোকে পরিপূর্ণ হয়ে যায় পাবনা এডওয়ার্ড কলেজের মেইন গেট মাঠ, একাডেমি ভবন মাঠ, লিচু তলা মাঠ এবং আমনাকানন মাঠ। অল্প সময়ের মধ্যে আয়োজন করে বসে যায় ফুলের দোকান। ছেলে, মেয়ে, বড়, বাচ্চাদের প্রধান আকর্ষণ ফুলের তোরা, গোলাপ ও রজনীগন্ধার স্টিক। সবার হাতে হাতে ফুল। বসন্তের ফুল। কেউবা ফুল হাতে অপেক্ষা করছে প্রিয় জনের জন্য। বসন্ত বরণের সাথে কেউ কেউ পালন করছে ভালোবাসা দিবসও বটে। বুলবুল কলেজের একজন শিক্ষার্থী বলেন,”বসন্ত উপলক্ষে ফুল কিনলেও আমি মূলত ফুলটি কিনেছি আমার প্রিয় জনের জন্য।”

শিশু হালিমা বলেন, “আমি এবং আমার আম্মু বসন্ত বরণ করে নিতেই ফুলের তোরা কিনে মাথায় দিছি।”

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী মো: রাসেদ বলেন, “দিনটি আমাদের মনে নতুন দিগন্তে সূর্য উদয়ের মত।”

এডওয়ার্ড কলেজের একজন ছাত্র মো: হারুন অর রশিদ বলেন, “বিশেষ কোন প্রতিষ্ঠান থেকে তেমন কোন আয়োজন করে বরণ করেনি এই বিশেষ দিনটিকে। তাই আমরা আমাদের ব‍্যক্তিগত উদ্যোগ থেকে বরণ করে নিচ্ছি দিনটিকে।”

ফুলের দোকানদার বাচ্চু বলেন, “সারাদিন তেমন একটা ফুল বিক্রি করতে পারি নাই। তবে এখন খুব চলছে।”

ফুলের দোকানের পাশাপাশি বেশ কয়েকটি ফটোশপের স্টলও বসেছে। ছবি তুলছে মনের আন্দোলন সবাই। শেষ বিকেলে পাবনার সবাই বসন্তেকে বরণ করে নিছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

অনলাইন জরিপ

আপনি কি মনে করেন পাঠ্যবইইয়ের শরিফ থেকে শরিফা গল্পটি অপসারণ করা প্রয়োজন?
×

এই বিভাগ থেকে পড়ুন