1. admin@dainikdeshantar.com : admin :
  2. anikrahman64mcjjnu@gmail.com : Anik Rahman : Anik Rahman
  3. parvezhosen2020@gmail.com : Parvez Hosen : Parvez Hosen
পান পাতা গাছের উপকারিতা - দৈনিক দেশান্তর

পান পাতা গাছের উপকারিতা

মোসফিকা আক্তার
  • প্রকাশের সময়- রবিবার, ২২ আগস্ট, ২০২১

পান Piperaceae পরিবারের গ্রীষ্মমন্ডলীয় অঞ্চলের একপ্রকার লতাজাতীয় গাছের পাতা। আর্য এবং আরবগণ পানকে তাম্বুল নামে অভিহিত করত। নিশ্বাসকে সুরভিত করা এবং ঠোঁট ও জিহবাকে লাল করার জন্য মানুষ পান খায়।প্রধানত দক্ষিণ এশিয়া, উপসাগরীয় অঞ্চলের দেশসমূহ, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের মানুষ পান খায়।কেবল স্বভাব হিসেবেই নয়, ভারতে ঐতিহ্যগতভাবে সামাজিক রীতি, ভদ্রতা এবং আচার-আচরণের অংশ হিসেবেই পানের ব্যবহার চলে আসছে। অনুষ্ঠানাদিতে পান পরিবেশন দ্বারা প্রস্থানের সময় ইঙ্গিত করা হয়। এক সময় উৎসব, পূজা ও পুণ্যাহে পান ছিল অবিচ্ছেদ্য অংশ। প্রাচীন অভিজাত জনগোষ্ঠীর মাঝে পান তৈরি এবং তা সুন্দরভাবে পানদানিতে সাজানো লোকজ শিল্প হিসেবে স্বীকৃতি পেত।

পানের সাথে সবসময়ই সুপারি দেয়া হয়, তবে অনেকেই সুপারি ছাড়া পান খেতে পছন্দ করেন।অনেকে জর্দা দিয়েও পান খান।পান সাধারণত: কোনকিছু খাওয়ার পর মুখে নিয়ে চিবুনো হয়৷শরীরের নানা সমস্যার ক্ষেত্রে পান পাতার বিভিন্ন ধরণের উপকারিতা দেখা গিয়েছে। যেমন রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ

১. সর্দি ও কাশি সারাতে

নানা পৌরাণিক ঔষধি তথ্যে পাওয়া গিয়েছে যে সর্দি ও ঠান্ডা লেগে নাক বন্ধ হয়ে গেলে সর্ষের তেলে পান পাতা চুবিয়ে রেখে তা গরম করে বুকে মালিশ করলে ফুসফুসে বসে যাওয়া কফ নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এছাড়া পান পাতার রস মধুর সাথে মিশিয়ে বাচ্চাদের খাওয়ালে তরল কফ একেবারে কমে । ব্রঙ্কাইটিস মেটাতেও এই পান পাতা উপকারী। পান পাতা দিয়ে তৈরী এসেনশিয়াল অয়েল এক্ষেত্রে সমান ভূমিকা পালন করে থাকে ।

২. ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ

লাল রঙের পান পাতা রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমাতে দারুন উপকারী। এতে রয়েছে ট্যানিন নামে এক সক্রিয় মলিকিউল যাতে অ্যান্টি-ডায়াবেটিক উপাদান থাকে। এছাড়া পান পাতায় থাকা অ্যালকালয়েড রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে তা অন্ত্রে শোষণ করতে সাহায্য করে । পান পাতায় রয়েছে নানা ধরণের পলিফেলন যা অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে ভরপুর এবং অগ্নাশয়ের কোষগুলিকে বর্জ্য পদার্থ মুক্ত করতে সাহায্য করে। এছাড়া আমাদের ভারতবর্ষে অনেকেরই প্রতিদিন পান খাওয়ার অভ্যেস থাকে। দেখা গিয়েছে যে এদের ক্ষেত্রে ডায়াবেটিসের মাত্রা বেশ নিয়ন্ত্রণে থাকে।

৩. দাঁতের স্বাস্থ্যের জন্যে

ঠিক যেমন শরীরে ট্যাটু করা হয়, তেমনি দক্ষিণ পূর্ব এশিয়াতে দাঁত লাল করা একটি প্রথা। এর ফলে দাঁতের নানারকমের সংক্রমণ ও পীড়া দূর করা যায়। পান পাতা চিবোলে খুব প্রাকৃতিক উপায় দ্বারা দাঁত লাল করা যায়। পান পাতায় রয়েছে ক্যাটেকোলামাইন যা মুখের ক্যান্সার রোধ করে।

৪. হজম ক্ষমতা বাড়াতে

খাওয়া দাওয়া হয়ে গেলে অনেকেই পান খেয়ে থাকে যার মূল উদ্দেশ্য হল খাবার হজম করা। পান পাতায় থাকা বিভিন্ন অ্যান্টি -মাইক্রোবিয়াল উপাদান যা অম্বল, গ্যাস ও কোষ্ঠকাঠিন্য কমাতে সাহায্য করে। ফলে হজম ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। এক্ষেত্রে পান পাতার উপকারিতা অনস্বীকার্য ।

৫. ক্ষুধাভাব বাড়ায়

হজম ক্ষমতা বাড়লে ও কোষ্ঠকাঠিন্য কমে গেলে স্বাভাবিক ভাবেই খাওয়ার ইচ্ছে শক্তি ও খাবারের প্রতি ভালোবাসা বেড়ে যাবে। ফলে সারাদিন ধরে যে পেট ভাড়, পেট জ্বালা বা অম্বল গ্যাসের সমস্যা সেগুলি কেটে যায়।

৬. মুখের আলসার কমাতে

পান পাতায় রয়েছে অ্যান্টি-ফাঙ্গাল ও অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল উপাদান যা দাঁত ও মাড়ি সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। এর ফলে মুখে আলসার বা ঘা হলে কমে যায় । শুধু তাই নয়, আলসারের ফলে যে মুখে দুর্গন্ধ হয়ে থাকে তা পান পাতার সাহায্যে দূর করা যায় কারণ পান পাতা দারুন একটি প্রাকৃতিক মাউথ ফ্রেশনারের মত কাজ করে। পানের রস ও গরম জলের সাহায্যে রোজ কুলকুচি করলে মাড়ির রক্তপাত সমস্যা দূর হয়।শরীরের দুর্গন্ধ দূর করে

শরীরের দুর্গন্ধ দূর করতে পানের উপকারিতা অনেকটাই বলা যেতে পারে। এই পাতা শরীরের দুর্গন্ধ দূর করা সুগন্ধি অর্থাৎ ডিওড্রেন্টের কাজ করতে পারে। প্রতিদিন স্নান করার আগে জলে পান পাতা চুবিয়ে সেই জল দিয়ে স্নান করুন। দেখবেন স্বাভাবিকভাবেই শরীরের দুর্গন্ধ ও ঘামের গন্ধ দূর হয়ে যাবে। মহিলাদের মাসিক হলে যে শরীরের গন্ধ হয় সেটিও কমে যায়।

৮. ক্যান্সার রোধ করে

পান পাতায় রয়েছে প্রাকৃতিক অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, অ্যান্টি-মিউটাজেনিক ও অ্যান্টি-ক্যান্সার উপাদান যা ক্যান্সার রোধ করতে সক্ষম বলে জানা গেছে । এমনকি, যাদের ধূমপান করার নেশা থাকে, তারা পান পাতার সাহায্যে এই নেশা ছাড়াতে পারেন।

৯. ওজন কমাতে সাহায্য করে

খাওয়ার পর পান পাতা খেলে হজম শক্তি বাড়ে ও বিপাক ক্রিয়া বৃদ্ধি পায়। এর ফলে আপনার পেট পরিষ্কার থাকে যা ওজন কমানোর জন্যে খুবই প্রয়োজনীয়। এছাড়া পান পাতার রস আপনার অতিরিক্ত ক্ষুধাভাব কমিয়ে সঠিক মাত্রায় খাবার গ্রহণ করার ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এতে অতিরিক্ত ক্যালোরি গ্রহণ করা থেকে আপনি নিজেকে দূরে রাখতে পারেন১০. গ্যাস্ট্রিক কমাতে সাহায্য করে

গ্যাস্ট্রিক বা পেটের আলসার কমাতে পানের উপকারিতা অনেক। অম্বল, গ্যাস বা কোষ্টকাঠিন্য জাতীয় সমস্যা যত রোধ করা যাবে, ততই আপনার গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দূরে থাকবে। পান পাতার অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি-ব্যাক্টিরিয়াল উপাদান গ্যাস্ট্রিক কমাতে ওষুধের মত কাজ করে।

১১. কেটে যাওয়া বা ঘা কমাতে

শরীরে কোথাও কেটে গেলে বা ঘা হলে অনেক সময় তা ঠিক হতে সময় লাগে। বিশেষ করে যাদের ডায়বেটিস আছে তাদের ক্ষেত্রে এটি বেশি দেখা যায়। পান পাতা এই ক্ষেত্রে দারুন ভূমিকা নেয়।

১২. ব্রণ দূর করে

পান পাতায় থাকা অ্যান্টি-ফাঙ্গাল ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদান ব্রণ বা ব্রণ হওয়ার ফলে ত্বকে যে দাগ ছোপ পড়ে সেটি সহজে সারিয়ে তুলে ত্বককে কোমল ও মোলায়েম করে তুলতে সাহায্য করে । ভাল ফল পেতে হলে পান পাতার রসে একটু মধু ও দই মিশিয়ে রোজ লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। খুব শীঘ্রই ফল পাবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরো সংবাদ

© All rights reserved © 2020 dainikdeshantar

Theme Customized BY WooHostBD