fbpx
সংবাদ শিরোনাম

দেশের মেগা প্রকল্প মেট্রোরেলের ৮ ম চালান এখন মোংলায়

                                           
সোহেল রানা বাবু/বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশ : সোমবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

মোংলা বন্দরে দেশের মেগা প্রকল্পের মধ্যে অন্যতম মেট্রোরেলের অষ্টম চালান এসে পৌঁছেছে।১৪ ই ফেব্রুয়ারী সোমবার বেলা ১১টায় মোংলা বন্দরের ৮ নম্বর জেটিতে মেট্রোরেলের চালানটি নিয়ে পানামা পতাকাবাহী এম হরিজন-৯ জাহাজটি নোঙর করেছে।

জাপানের কোবে বন্দর থেকে গত ১ ফেব্রুয়ারি ছেড়ে আসা এই চালানে রয়েছে মেট্রোরেলের আটটি বগি ও চারটি ইঞ্জিন। বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব ও হারবার মাস্টার কমান্ডার শেখ ফখর উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এবারের ইঞ্জিন বগির সঙ্গে ৪৪ প্যাকেজের আরও ৪৮৮ টনের সরাঞ্জামও এসেছে জানিয়ে তিনি বলেন সোমবার দুপুর থেকেই এগুলোর খালাস প্রক্রিয়া শুরু হবে।

বন্দরে আসা হরিজন-৯ জাহাজের স্থানীয় শিপিং এজেন্ট এনশিয়েন্ট স্টিম শিপ কোম্পানির ব্যবস্থাপক মো. ওয়াহিদুজ্জামান বলেন ,আজ (সোমবার) পর্যন্ত আটটি জাহাজে মেট্রোরেলের মোট ৬৮ টি বগি মোংলা বন্দরে এসেছে। ২০২২ সালের মধ্যে আরও ৮২টি বগি আসবে।

এর আগে সাতটি জাহাজে করে ৫৬ টি বগি এই বন্দরে পৌঁছায়। সেসব বগি সংযোজন করে পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হয়েছে।মোংলা বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল মোহাম্মদ মুসা বলেন, দেশের অন্যান্য মেগা প্রকল্পের সরঞ্জাম সহ দেশে আমদানি হওয়া মেট্রোরেলের এসব বগি-ইঞ্জিন মোংলা বন্দর দিয়ে খালাস হওয়ায় বন্দরের সক্ষমতার প্রমাণ মিলেছে।
দেশের প্রথম মেট্রোরেল প্রকল্প মেট্রো রেললাইন-৬ বা এমআরটি-৬-এর আওতায় উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ২০ দশমিক ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ মেট্রোরেলের রুট নির্মাণকাজ চলমান রয়েছে। শুরুতে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত এই ট্রেন চলাচলের কথা রয়েছে।

উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত মেট্রোরেল-৬ রুটে ২৪ সেট ট্রেন চলাচল করবে। প্রতি ৫ থেকে ১০ মিনিট পরপর ছাড়বে এক একটি ট্রেন। ট্রেনের প্রথম সেট গত এপ্রিলে ঢাকায় ডিপোতে পৌঁছায়। এসব ট্রেনের প্রতিটিতে ছয়টি গাড়ি বা কোচ রয়েছে।
স্টেইনলেস স্টিলের কোচগুলোর ভেতরে দুই পাশে লম্বালম্বি বসার আসন রয়েছে। একটি ট্রেনের দুই প্রান্তের দুটি কোচকে বলা হচ্ছে ট্রেইলার কার, যা ট্রেনকে চালিয়ে নিয়ে যাবে, এতেই চালক থাকবেন।

এক সেট ট্রেন একবারে সর্বোচ্চ ২ হাজার ৩০৮ জন যাত্রী বহন করতে পারবে। মতিঝিল পর্যন্ত রুটে প্রতি ঘণ্টায় ৬০ হাজার এবং দিনে পাঁচ লাখ যাত্রী বহন করবে এই মেট্রোরেল ।
মোট ১৬টি স্টেশনে থামবে ট্রেনগুলো। ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১১০ কিলোমিটার গতিতে ছুটতে পারবে এ ট্রেন।
ট্রেনগুলো তৈরি করছে জাপানের কাওয়াসাকি হেভি ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। পরে এগুলো দেশটির কোবে সমুদ্রবন্দর থেকে জাহাজে করে দেশে আনা হয়।

ঢাকার যানজট নিরসন এবং দ্রুত ও আরামদায়ক যাতায়াত নিশ্চিত করতে উত্তরা-মতিঝিল রুট ছাড়াও পাঁচ রুটে মেট্রোরেল লাইন নির্মাণ করা হবে। ঢাকাকে ঘিরে সব মিলিয়ে মেট্রোরেলের ১২৮ কিলোমিটারের নেটওয়ার্ক হবে বলে জানা গেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগ থেকে পড়ুন