fbpx
সংবাদ শিরোনাম
সৌদি আরবের জেদ্দায় ফ্লাইট শুরু করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স তীব্র তাপদাহেও গ্রীষ্মের সৌন্দর্য অমলিন ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগের উপ-কর্মসূচি ও পরিকল্পনা সম্পাদক হলেন প্রিয়ন ফুলছড়িতে প্রার্থীর প্রচার-প্রচারণায় জমে উঠেছে নির্বাচনী আমেজ বৈষম্যের প্রতিবাদে সারাদেশের ন্যায় কর্মবিরতিতে মাগুরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ডুমুরিয়ায় নিসচা’র নতুন কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১০ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল হযরত আয়েশা সিদ্দিকা রা. কওমী মাদ্রাসা উদ্বোধন টাইমস হায়ার এডুকেশন র‌্যাঙ্কিংয়ে দেশে তৃতীয় স্থানে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় মণিরামপুরে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী থেকে সরে দাড়ালেন মিকাইল হোসেন

দারুচিনি উপকারিতা

                                           
মোসফিকা আক্তার
প্রকাশ : রবিবার, ১ আগস্ট, ২০২১

দারুচিনি (ইংরেজি নাম :clnnaman) বৈজ্ঞানিক নাম: cinnamomus zcyla nicum) একটি মসলা বৃক্ষের নাম।

স্বাভাবিক পরিবেশে এই বৃক্ষের উচ্চতা দশ থেকে পনের মিটার পর্যন্ত হয়ে থাকে।আদি নিবাস শ্রীলংকার।আজ কাল ইন্দোনেশিয়ার ভারত বাংলাদেশ ও চীনে প্রভৃতি দেশে উৎপাদিত হচ্ছে। দেখতে কিছুটা তেজপাতা বৃক্ষের মতো এই বৃক্ষের চামড়াটা মসলা হিসেবে ব্যবহৃত হয়। দারুচিনির সুগন্ধ যুক্ত তৈল ও পাওয়া যায়। দারুচিনির বাকলে থাকে সিনামাল ডিহাইড যা দারুচিনির ঘ্রাণের জন্য দায়ী।পাতায় থাকে ইউজিনল।দারুচিনির দারুন সুবাস অস্পষ্ট,সাধারণত উজ্জল তৃণভোজী রোলগুলির স্বপ্নগুলোকে উচ্চারণ করে।

দারুচিনি একবার এতো মূল্যবান ছিল যে যুদ্ধগুলি তার বিরুদ্ধে যুদ্ধ হয়েছিল এটি যুদ্ধা হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছিল এবং এর কার্যকারিতা ক্ষমতা আছে। সিনলোন (শ্রীলকা) সত্যিকারের দারুচিনি সিনাওমোসুম জিয়ালনিকামের নেটিভ ২৮০০ খ্রিস্টপূর্বাদ্বের চীনা লেখার ফিরে আসেন এবং আজ ক্যান্টেনিজ ভাষায় কুইই নামে পরিচিত। দারুচিনিতে রক্তের শতর্করা রোধ করাসহ উন্নত অসাধারন ঔষধি গুনাবলি রয়েছে।যা প্রদাহ কমাতে ও স্নায়বিক স্বাস্হ্য উন্নীত করতে সহায়তা করে।এ ছাড়াও সুগন্ধি মসলা হিসাবে দারুচিনি ব্যাপকভাবে পরিচিত।

দারুচিনি নিছক মসলা হিসেবে দারুচিনি বেশি পরিচিত। কিন্তু এই মসলা স্বাস্থ্যের জন্যও দারুণ উপকারী।

 

উপকারিতাঃ

১) হৃদরোগ প্রতিরোধ – হৃদরোগ প্রতিরোধে দারুচিনি দারুণ সহায়ক। এই মসলা হৃদযন্ত্রের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে। এতে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমে যায় অনেকটাই।

২) অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট – দারুচিনিতে রয়েছে পর্যাপ্ত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। এর ফলে নানা জটিল রোগের বিরুদ্ধে রক্ষাকবচ হিসেবে কাজ করে এই মসলা।

৩) স্নায়বিক স্বাস্থ্য – রক্তে শর্করার পরিমাণ কমাতে সহায়ক দারুচিনি। এর ফলে প্রদাহ কমে, স্নায়বিক স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে।

৪) ত্বকের যত্নে – দারুচিনি খেলে ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়ে। ব্রণ রোধ করতে দারুণ উপকারী এই মসলা।

৫) স্মৃতিশক্তি বাড়ায় – নিয়মিত দারুচিনি খান। এতে স্মৃতিশক্তি যে বাড়বে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

৬) পেট ব্যথা উপশম – এই মসলা অ্যাসিডিটির সমস্যা কমায়। এতে পেটের ব্যথা উপশম হয়। এ ছাড়া রক্তে ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের (এলডিএল) মাত্রা কমাতে অনন্য ভূমিকা রাখে দারুচিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগ থেকে পড়ুন