fbpx
সংবাদ শিরোনাম
রাবিতে আন্তঃহল বিতর্ক প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ন সৈয়দ আমির আলী হল লাইলাতুল বারাআত তথা মুক্তি বা পরিত্রাণের রজনী। মুজিবনগরে বিদেশী পিস্তল সহ ৫ যুবক আটক। শারীরিক প্রতিবন্ধী শিশুকে হুইলচেয়ার উপহার কৃষকের মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে ধ্রুমজাল তৈরি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রে ঢাবির ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় উপস্থিতির হার ৯১.৭৫ শতাংশ ২৯ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু রাবির হোসন শহীদ সোহরাওয়ার্দী স্মারক আন্তঃক্লাব বিতর্ক উৎসব-২০২৪ ভাষা শহীদদের প্রতি রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির শ্রদ্ধাঞ্জলি। যশোরের অভয়নগর উপজেলা সমিতির দায়িত্বে গালিব ও পারভেজ সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান মাসুদ রানার পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন
নোটিশ :

জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘দৈনিক দেশান্তর’ এ সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। এজন্য দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতে আগ্রহীদের কাছ থেকে আবেদন আহবান করেছে প্রতিষ্ঠানটি। আগ্রহীদের ই-মেইলে সিভি পাঠানোর জন্য বলা হয়েছে। সিভি পাঠানোর ই-মেইল: dainikdeshantar@gmail.com  অথবা ০১৭৮৮-৪০৫০৯১ এ যোগাযোগ করুন।

তবু আশঙ্কা | মৃত্তিকা খান

                                           
শাবলু শাহাবউদ্দিন
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

তবু আশঙ্কা
মৃত্তিকা খান

জীবন নামক মহা সড়কের মাঝে
একা দাঁড়িয়ে অভাগিনী,
জানে না কোন বাহনে উঠতে হবে
কোথা তার গন্তব্য।

দু’হাত ভর্তি জিনিসপত্র
ঠাসা ঠাসা সপ্ন,প্রেম,কাম,যত্ন
কারে দিবে,জানে না
কে নেবে জানে না।

কতো ভুল বাহনে উঠে
মাঝপথে নেমে গিয়ে
নিভে যাওয়া সলতে হয়ে
পুড়ছে বিরহে।

দিশেহারা সে রমণী
বর্ষায় ভিজে একাকার
চোখের জল,শ্রাবণের জল
এক ভাবে বয় নিরাকার।

একাকিনী সে তরুণী
রোদে পুড়ে কনক শরীর
ঘামের জলে চোখের জলে
বাধ্যতামূলক সর্বংসহা।

কতো বাহন,কতো ঠিকানা!
কোথাও না যাওয়া যায়
কোথাও না যেতে চায়
চির বিরহিনী পুড়ছে, পুড়ুক।

মায়াবী কান্তি মাঝে বিরহের রেখা
তার বন্ধু,সুজন প্রেমিকের তরে।
বিরহিনী জেনে গেছে দুঃখ তার সঙ্গী
কেউ কারো হয়না দুঃখহরা।

সে তপস্যা জানে না,সে মুনির
ধ্যান ভাঙাতে পারে না।
সে নিজ ঘরে পরবাসী,সে কুলটা নারী
প্রেমিকের বুকেও পরবাসী।

প্রেমিকের তরে ফুলসজ্জা রচে
কতো কানন,কতো পংক্তিতে
শত চুমো পায়ে দিয়ে বলে,
ছেড়ে না যেতে কোনো করা ভুলে।

চোখের তারার পেছনে গুপ্ত
আসমুদ্রহিমাচল দুঃখ
বন্ধু প্রেমিককে দেখায়
কাকুতি ভরা কণ্ঠে।

প্রেমিক বিরহ দেয় ভিন্ন ছন্দে
ঘন দুঃখ চুইয়ে পরে রক্তের গন্ধে
হৃদয় নামক কারাগার থেকে,
বন্ধু প্রেমিক কাঁদায় রেখে রেখে।

রাজপুত্র প্রেমিক তার বাহনে
আগেই নিয়েছিল যাত্রী
দুখিনীর চোখে ঘোরতর রাত্রি
তবুও এসেছিল জীবনে,বলেছিল
কথা তব ভালোবাসার।
তবুও আশঙ্কা,যদি না রাখে কথা!
যদি অনুরোধ না রাখে,আশঙ্কা খুবই,
তবুও ভালো উদাসীন থাকা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

অনলাইন জরিপ

আপনি কি মনে করেন পাঠ্যবইইয়ের শরিফ থেকে শরিফা গল্পটি অপসারণ করা প্রয়োজন?
×

এই বিভাগ থেকে পড়ুন