fbpx
সংবাদ শিরোনাম
ফল প্রকাশে অটোমেশন প্রক্রিয়ার উদ্বোধন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ: ১ জনকে হলত্যাগ ও ২ জনের ছাত্রত্ব বাতিলের সুপারিশ শার্শায় ফসলি জমির মাটি বিক্রির সিন্ডিকেট বেপরোয়া, জড়িত খোদ ইউপি সদস্যরা পাইকগাছায় ঘূর্নিঝড় রেমালের প্রভাবে নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি : মারাত্মক ঝুঁকিতে ২টি ভেড়িবাঁধ স্বতন্ত্র বেতনস্কেল প্রবর্তনের দাবিতে নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন রাবিতে প্রথমবারের মতো ‘ইনোভেশন শোকেসিং’ অনুষ্ঠিত জবির ফিচার, কলাম অ্যান্ড কনটেন্ট রাইটার্সের নেতৃত্বে মুনতাহা-শাহরিয়ার উচ্চশিক্ষা নিয়ে রাবিতে সেমিনার অনুষ্ঠিত শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবনী উদ্যোগের জন্য নির্বাচিত দপ্তর-সংস্থার মাঝে শিল্পমন্ত্রীর সনদ বিতরণ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বজনীন পেনশন নীতিমালা প্রত্যাহারের দাবিতে শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

টিকা নিতে গিয়ে কুবি শিক্ষার্থী হেনস্তার শিকার

                                           
মীর শাহাদাত
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

কুবি প্রতিনিধিঃ কুমিল্লা সদর হাসপাতালে টিকা নিতে গিয়ে টিকাকর্মীর হাতে হেনস্থার শিকার হয়েছেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী। টিকা কার্ডে টিকার সিল না থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে ওই শিক্ষার্থীকে হেনস্থা করেন সাব্বির হোসেন নামের এক টিকাকর্মী।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) কুমিল্লা সদর হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩ তম ব্যাচের একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সায়েন্স বিভাগের শারাফাত সিজান।

সারাফাত সিজানের সাথে কথা বলে জানা যায়, দুপুর ২ টায় তিনি টিকা কেন্দ্রে গিয়ে টিকা নেন। টিকা শেষে তিনি লক্ষ করেন তার টিকা কার্ডে টিকার নাম বা টিকা প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের কোন সীল নেই। শুধু ইংরেজিতে m লেখা রয়েছে। শুধুমাত্র একটি ইংরেজি অক্ষর লিখা দেখে সিজান দায়িত্বরত টিকাকর্মী সাব্বির কে জিজ্ঞেস করলে তিনি দুর্ব্যবহার করেন এবং এক পর্যায়ে তাকে মারতে উদ্যত হয়। কিন্তু সেখানে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা বিষয়টি দেখেও চুপ ছিলেন। তারপর প্রত্যক্ষদর্শীরা প্রতিবাদ করলে সিজান সেখান থেকে চলে আসেন।

তিনি আরো বলেন, শুধু আমার সাথে নয় লাইনে দাড়াঁনো অনেকের সাথেই সাব্বির হোসেন দুর্ব্যবহার করছেন। কিন্তু সবাই বিষয়টা নিয়ে চুপ থাকেন। আমি তাকে জিজ্ঞাস করি ‘ভাই আমার কার্ডে সীল মারা হয়নি। সীল কি না থাকলেও চলবে? এতেই সাব্বির আমার উপর রেগে গিয়ে দুর্ব্যবহার করেন।

এবিষয়ে জানতে চাইলে কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মীর মোবারক হোসাইন বলেন, বিষয়টি খুবই অনাকাঙ্খিত। এমন ঘটনার বিষয়ে আমার কাছে এমন কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে আমি অবশ্যই ব্যবস্থা নিব। তিনি আরো বলেন, আমি আজ অফিসেই ছিলাম। ওই শিক্ষার্থী আমাকে তাৎক্ষণিক অভিযোগ করলে সাথে সাথে ব্যবস্থা নিতে পারতাম।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের বলেন, আমাদের টিকা প্রত্যাশী শিক্ষার্থীদের সাথে এ ধরনের দুর্ব্যবহার ওনারা করতে পারেন না। শিক্ষামন্ত্রণালয় এবং ইউজিসি থেকে তেমন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তারপরও যদি তারা এমনটা করে থাকেন আমরা সিভিল সার্জনের সাথে কথা বলে একটা ব্যবস্থা নিবো।

উল্লেখ্য, কুমিল্লা সদর হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীদের বিরুদ্ধে এছাড়াও অনেক অভিযোগ রয়েছে। পূর্বে টিকা নেওয়া অনেককেই এমন পরিস্থিতির মুখে পড়তে হয়েছে। এমনকি তাদের নারী টিকা কর্মীদের বিরুদ্ধেও টিকা প্রত্যাশী সাধারণ জনগণের সাথে খারাপ ব্যবহারের অভিযোগ রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগ থেকে পড়ুন