fbpx
সংবাদ শিরোনাম
ফল প্রকাশে অটোমেশন প্রক্রিয়ার উদ্বোধন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ: ১ জনকে হলত্যাগ ও ২ জনের ছাত্রত্ব বাতিলের সুপারিশ শার্শায় ফসলি জমির মাটি বিক্রির সিন্ডিকেট বেপরোয়া, জড়িত খোদ ইউপি সদস্যরা পাইকগাছায় ঘূর্নিঝড় রেমালের প্রভাবে নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি : মারাত্মক ঝুঁকিতে ২টি ভেড়িবাঁধ স্বতন্ত্র বেতনস্কেল প্রবর্তনের দাবিতে নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন রাবিতে প্রথমবারের মতো ‘ইনোভেশন শোকেসিং’ অনুষ্ঠিত জবির ফিচার, কলাম অ্যান্ড কনটেন্ট রাইটার্সের নেতৃত্বে মুনতাহা-শাহরিয়ার উচ্চশিক্ষা নিয়ে রাবিতে সেমিনার অনুষ্ঠিত শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবনী উদ্যোগের জন্য নির্বাচিত দপ্তর-সংস্থার মাঝে শিল্পমন্ত্রীর সনদ বিতরণ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বজনীন পেনশন নীতিমালা প্রত্যাহারের দাবিতে শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

গবির সাবেক শিক্ষার্থী পেল পুলিশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পুরস্কার

                                           
মোঃ রাকিবুল হাসান
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

গবি প্রতিনিধিঃ গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী পুলিশের এসআই মনসুর হোসেন মানিক পেয়েছেন ‘পুলিশ ফোর্স এক্সেমপ্ল্যারি গুড সার্ভিসেস ব্যাজ’। ২০২০ সালের কল্যাণকর কাজের স্বীকৃতি হিসেবে তাকে এই ব্যাজ প্রদান করা হয়৷ যা পুলিশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পুরস্কার।

বৃহস্পতিবার ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশের ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) মনসুর হোসেনকে ব্যাজ পরে দেন এবং সম্মাননা সনদ প্রদান করেন।

পুলিশ সদর দফতর সূত্রে জানা গেছে, কর্মক্ষেত্রে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন, বাহিনীর মর্যাদা বৃদ্ধি হয়েছে এমন কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি বিভিন্ন ভালো কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ প্রতি বছর পুলিশ সপ্তাহে আইজিপি ব্যাজে মনোনীত পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যদের এ পদক দেওয়া হয়।

এছাড়াও যারা আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, জননিরাপত্তা বিধান, জনসেবামূলক কর্মকাণ্ড, মামলার রহস্য উদঘাটন, ভালো পুলিশিং, সরকারি ও ব্যক্তিগত কাজের মাধ্যমে পুলিশ বাহিনীর ভাবমূর্তি বাড়ানোসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজে অবদান রাখেন তাদের এ পদকের জন্য নির্বাচিত করা হয়।

‘পুলিশ’ বলতেই যেরকম ছবি সাধারণত মনে ভেসে ওঠে, তার সঙ্গে মনসুর হোসেন মানিকের কোনো মিলই নেই। এই পুলিশ কর্মকর্তার পরিচিতি বরং কোমল হৃদয়ের মানুষ হিসেবে। যেদিন তিনি যে এলাকায় দায়িত্ব পালন করেন, সেই এলাকার ভাসমান মানুষ, ভিক্ষুক, ভবঘুরেরা উৎফুল্ল হয়ে ওঠেন। কারণ, তাদের খাবার, পানি, মাস্ক, স্যানিটাইজার কিনে দেন মানিক। শুধু তাই নয়, করোনাকালে কাউকে হাসপাতালে নেওয়া দরকার, কারও চাই ওষুধ বা নগদ টাকা- সাধ্যমতো সব চাহিদাই পূরণের চেষ্টা চালান তিনি। সবই করেন নিজের বেতনের টাকায়। একজন মানবিক পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে তার পরিচিতি গড়ে উঠে বছরখানিক আগে। সহকর্মীসহ অনেকে এখন তাকে চেনেন ‘মানবিক মানিক’ নামে।

সাভার গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ৩য় ব্যাচের শিক্ষার্থী এই পুলিশ কর্মকর্তা। তিনি বাংলাদেশ পুলিশ অ্যাসোসিয়েশনের সহ-প্রচার সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন। এ ছাড়াও গণ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের প্রচার সম্পাদক এবং ইংরেজি বিভাগের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

২০২০ সালে ভালো কাজের জন্য পুলিশ সুপার থেকে ছয়টি ক্যাটাগরিতে পুলিশ কর্মকর্তাদের ব্যাজ দেওয়া হয়। ব্যাজ পাওয়া কর্মকর্তাদের পুলিশ সপ্তাহের অনুষ্ঠানে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেওয়ার কথা থাকলেও করোনার কারণে এবার নিজ নিজ দফতরে পৌঁছে দেওয়া হয় এই ব্যাজ। ব্যাজ পদকের পাশাপাশি প্রত্যেককে আর্থিক পুরস্কারও দেওয়া হয়।

এসআই মনসুর হোসেন বলেন, আমি অনেক আনন্দিত। সিনিয়র কর্মকর্তারা যারা আমাকে সাহায্য করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। একই সাথে বাংলাদেশ পুলিশ এসোসিয়েশন’কে ধন্যবাদ।

তিনি আরও বলেন, আমি সামাজিক ও মানবিক কাজগুলো চালিয়ে যাবো। ভালো কাজের মাধ্যমে পুলিশের সর্বোচ্চ পুরস্কার বিপিএম ও পিপিএম প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে পেতে চাই। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগ থেকে পড়ুন