fbpx
সংবাদ শিরোনাম
ফল প্রকাশে অটোমেশন প্রক্রিয়ার উদ্বোধন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ: ১ জনকে হলত্যাগ ও ২ জনের ছাত্রত্ব বাতিলের সুপারিশ শার্শায় ফসলি জমির মাটি বিক্রির সিন্ডিকেট বেপরোয়া, জড়িত খোদ ইউপি সদস্যরা পাইকগাছায় ঘূর্নিঝড় রেমালের প্রভাবে নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি : মারাত্মক ঝুঁকিতে ২টি ভেড়িবাঁধ স্বতন্ত্র বেতনস্কেল প্রবর্তনের দাবিতে নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন রাবিতে প্রথমবারের মতো ‘ইনোভেশন শোকেসিং’ অনুষ্ঠিত জবির ফিচার, কলাম অ্যান্ড কনটেন্ট রাইটার্সের নেতৃত্বে মুনতাহা-শাহরিয়ার উচ্চশিক্ষা নিয়ে রাবিতে সেমিনার অনুষ্ঠিত শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবনী উদ্যোগের জন্য নির্বাচিত দপ্তর-সংস্থার মাঝে শিল্পমন্ত্রীর সনদ বিতরণ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বজনীন পেনশন নীতিমালা প্রত্যাহারের দাবিতে শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

কুড়িগ্রামে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে কর্মহীন শত শত দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষ

                                           
নয়ন দাস
প্রকাশ : বুধবার, ৭ এপ্রিল, ২০২১

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ

সোমবার (৫ এপ্রিল) সকাল থেকে ৭ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ ঘোষণা করে সরকার। সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে, এতে কর্মহীন হয়ে পড়েছে শত শত দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষ।

তবে কুড়িগ্রামের চরাঞ্চলের চিত্র একেবারেই আলাদা জেলার ওপর দিয়ে প্রবাহিত ব্রহ্মপুত্র, ধরলা, তিস্তা, দুধকুমার ও ফুলকুমারসহ ১৬ টি নদী। এসব এলাকার চরাঞ্চলের বেশিরভাগ মানুষ জানেন না করোনা ভাইরাস কী। এসব চরে সচেতনতা মূলক কার্যক্রম না থাকায় স্বাস্থ্যবিধি মানছে না তারা। চরবাসীর মাস্ক ব্যবহার তো দূরের কথা হাট বাজারে ঘুরছেন গাদাগাদি করে। তারা বলেন, মাস্ক পরলে দম বন্ধ হয়ে আসে।

চর নারায়ণপুর ইউনিয়নের আবুল হোসেন বলেন, মাস্ক পরলে যন্ত্রণা ঠেকে তাই আমরা মাস্ক পরি না। আমার করোনার ভয় নাই, চরে করোনা ভাইরাস নাই। মাস্ক পরলে দম বন্ধ হয়ে যায়, তাই মাস্ক পরি না।’

চর জাহাজের আলগা গ্রামের আনিসুল বলেন, চরে করোনা ভাইরাস নাই। যেদিন কুড়িগ্রাম যাই সেইদিন মাস্ক পরি, না পরলে পুলিশ ধরে। প্রথমবার যখন করোনা আসলো তখন মাস্ক পরছিলাম। এখানকার মানুষ ভাইরাস বিশ্বাস করে না।

সদরের যাত্রাপুর ইউনিয়নের( ইউপি) চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব আলী সরকার জানান, আমার ইউনিয়নের বেশিরভাগ মানুষের বসবাস চরে। চরের মানুষজন বলে, আমাদের এখানে ভাইরাস নাই, ভাইরাস আছে ঢাকায়। তাই তারা মাস্ক পরছে না। তবে সচেতনতা মূলক প্রচারণা চলে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত।

কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম ঢাকা পোস্ট-কে জানান, আমাদের এখন মূল কাজ হচ্ছে মানুষকে ঘরে রাখা। মানুষকে ঘরে রাখতে সচেতনতা মূলক কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগ থেকে পড়ুন