fbpx
সংবাদ শিরোনাম
রাবিতে আন্তঃহল বিতর্ক প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ন সৈয়দ আমির আলী হল লাইলাতুল বারাআত তথা মুক্তি বা পরিত্রাণের রজনী। মুজিবনগরে বিদেশী পিস্তল সহ ৫ যুবক আটক। শারীরিক প্রতিবন্ধী শিশুকে হুইলচেয়ার উপহার কৃষকের মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে ধ্রুমজাল তৈরি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রে ঢাবির ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় উপস্থিতির হার ৯১.৭৫ শতাংশ ২৯ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু রাবির হোসন শহীদ সোহরাওয়ার্দী স্মারক আন্তঃক্লাব বিতর্ক উৎসব-২০২৪ ভাষা শহীদদের প্রতি রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির শ্রদ্ধাঞ্জলি। যশোরের অভয়নগর উপজেলা সমিতির দায়িত্বে গালিব ও পারভেজ সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান মাসুদ রানার পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন
নোটিশ :

জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘দৈনিক দেশান্তর’ এ সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। এজন্য দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতে আগ্রহীদের কাছ থেকে আবেদন আহবান করেছে প্রতিষ্ঠানটি। আগ্রহীদের ই-মেইলে সিভি পাঠানোর জন্য বলা হয়েছে। সিভি পাঠানোর ই-মেইল: dainikdeshantar@gmail.com  অথবা ০১৭৮৮-৪০৫০৯১ এ যোগাযোগ করুন।

কুষ্টিয়াতে ৪ দিনের নবজাতকের মায়ের মৃত্যু, সনো টাওয়ারে ভাংচুর করেছে নিহতের পরিবার

                                           
তানভীর আহমেদ
প্রকাশ : রবিবার, ১৩ জুন, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টারঃ কুষ্টিয়াতে ডাক্তারের অসাবধানতা ও দায়িত্বহীনতায় নবজাতকের মায়ের মৃত্যুর অভিযোগ তুলে সনো টাওয়ারে ভাংচুর করেছে নিহতের পরিবার। রবিবার ( ১৩ জুন) দুপুর ২ টার দিকে নাছরিন নাহার (২৫) এর মৃত্য ঘটে। নিহত নাছরিন নাহার কুষ্টিয়া দক্ষিন থানাপাড়া বাবর আলী গেইট বাসিন্দা।

সন্তান সম্ভাবনা হওয়ায় নাছরিন আক্তারকে বুধবার (৯ জুন) কুষ্টিয়া সনো টাওয়ারে ভর্তি করা হয়। পরে রাত ১২ টার দিকে সিজার সম্পূর্ণ করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার নাজনিন নাহার। ৩ দিন পর শনিবার নাছরিনকে ছাড়পত্র দেয় কর্তব্যরত চিকিৎসক।

নিহতের পরিবার জানান, রুগী বাড়ি ফিরে পেটে ব্যাথা সহ অসুস্থতা আনুভব করাই পূনরাই পরিবারের লোকজন অনুমানিক আজ সকাল ১২ঃ০০ ঘটিকার দিকে সনো ডায়াগনিস্টিক সেন্টারে নিয়ে আসেন, এবং ভর্তির জন্য আবেদন করাই কতৃপক্ষ ভর্তি না নিয়ে বাড়ি ফিরে যাওয়ার কথা বলা হয়। এভাবে এক/দেড় ঘন্টা বাহিরে অপেক্ষা করেন এবং দৌড়াদৌড়ি করেন বিভিন্ন কেবিন, ওয়াড ও ডাক্তারের কাছে। পরবর্তিতে ২ঃ৩০ মিনিট এর দিকে রুগীকে নিয়ে যাওয়া হয় ষষ্ট তলায়। সেখানে থাকা কর্তব্যরত ডাক্তার ও নার্স নাছরিনের মৃত্যুর ঘোষনা দেন।

এদিকে প্রথম তলায় উপস্থিত জনগন বলেন, প্রথমে যখন রুগীকে নিয়ে আসে তখন কোনো নড়াচড়া ছিল না, তারা মৃতই ধরে নিয়েছিলেন এবং মৃত আবস্থায় ষষ্ট তলাই নিয়ে জাওয়া হয়েছে বলে ধারণা তাদের। নিহত নাজনিনের পরিবার দাবী করছে, ডাক্তার নাজনিন নাহারের ভুলের কারনেই নাছরিনের মৃত্য হয়েছে,।

নিহতের মা জানান, অপারেশনের পর ডক্তার নাজনিন নাহার রুগির হাত ধরে ক্ষমা চান নিহত নাজমিন নাহার এর কাছে, এমন টা বলে যে আপনি আমাকে ক্ষমা করে দেন নয়ত আল্লাহ আমাকে ক্ষমা করবেন না, তবে ক্ষমা চাওয়ার বিষয়ে তখন গুরুত্ব দেন না পরিবারের সদস্যরা, এসময় রুগী ও পরিবার এর লোকজন ভাবেন ডাক্তার অনেক ভালো বলে হয়ত এমন নত ব্যাবহার করছেন। পরবর্তিতে মেয়ের মৃত্যুর পর ভুল চিকিৎসায় ভুল ছিলো বলে দ্বাবী করেন এবং, ভাংচুর চালান ষষ্ট তলাই। পরবর্তিতে পুলিশ এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন এবং ঘটনার সুষ্ট তদন্ত করবেন বলে আশ্বাস্ত করেন।

ভিডিও-

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

অনলাইন জরিপ

আপনি কি মনে করেন পাঠ্যবইইয়ের শরিফ থেকে শরিফা গল্পটি অপসারণ করা প্রয়োজন?
×

এই বিভাগ থেকে পড়ুন