fbpx
সংবাদ শিরোনাম
রাবিতে আন্তঃহল বিতর্ক প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ন সৈয়দ আমির আলী হল লাইলাতুল বারাআত তথা মুক্তি বা পরিত্রাণের রজনী। মুজিবনগরে বিদেশী পিস্তল সহ ৫ যুবক আটক। শারীরিক প্রতিবন্ধী শিশুকে হুইলচেয়ার উপহার কৃষকের মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে ধ্রুমজাল তৈরি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রে ঢাবির ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় উপস্থিতির হার ৯১.৭৫ শতাংশ ২৯ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু রাবির হোসন শহীদ সোহরাওয়ার্দী স্মারক আন্তঃক্লাব বিতর্ক উৎসব-২০২৪ ভাষা শহীদদের প্রতি রাবি রিপোর্টার্স ইউনিটির শ্রদ্ধাঞ্জলি। যশোরের অভয়নগর উপজেলা সমিতির দায়িত্বে গালিব ও পারভেজ সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান মাসুদ রানার পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন
নোটিশ :

জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘দৈনিক দেশান্তর’ এ সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। এজন্য দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতে আগ্রহীদের কাছ থেকে আবেদন আহবান করেছে প্রতিষ্ঠানটি। আগ্রহীদের ই-মেইলে সিভি পাঠানোর জন্য বলা হয়েছে। সিভি পাঠানোর ই-মেইল: dainikdeshantar@gmail.com  অথবা ০১৭৮৮-৪০৫০৯১ এ যোগাযোগ করুন।

আজ ২৬ শে জুন আন্তর্জাতিক মাদক বিরোধী দিবস

                                           
প্রকাশ : শনিবার, ২৬ জুন, ২০২১

মাদক কি? সাধারণত নেশা জাতীয় যে কোনো দ্রব্যই মাদক, এটি হতে পারে মদ, গাঁজা,আফিম,ইয়াবা ইত্যাদি।এগুলো সম্পর্কে যদি আমরা পেছনে ফিরে দেখি তাহলে দেখা যায় ইল্যান্ডের ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী ভারত বর্ষে উৎপাদিত মাদক দ্রব্য চীনের যুবকদের শারীরিক, অর্থনৈতিক, মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করার জন্য নেশা জাতীয় জিনিস আফিমের ব্যবহার শুরু এবং ১৮৩৯ খ্রিষ্টাব্দে চীনের সম্রাট এর বিরোধীতা শুরু করলে চীন-ইঙ্গো বাহিনীর মধ্যে একটি যুদ্ধ হয় ইতিহাসে তা আফিমের যুদ্ব নামে পরিচিত।

এ থেকে বুঝায় সুদূর অতীতেও এর ক্ষতিকর দিক ছিল তা বর্তমানেও তা বিদ্যমান রয়েছে। মাদকদ্রব্য সেবনকারীদের কিডনি ফিল্টারের যে ক্ষুদ্র ছিদ্রগুলো আছে সেগুলো মাদক দ্রব্যের কণা গুলো বন্ধ করে দেয় ফলে প্রথম দিকে স্বাস্হ্য ভালো থাকলেও পরে যেকোনো প্রকার মারত্মক দূর্ঘটনা ঘটতে পারে এবং মাদক দ্রব্য সেবনকারী মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পরে।

এ ছাড়া মাদকাসক্ত ব্যক্তির মাদক দ্রব্যক্রয়ের জন্য প্রচুর অর্থের প্রয়োজন হয় যা মাদকাসক্ত ব্যক্তির দ্বারা উপার্জন করা সম্ভব হয় না এ নিয়ে পারিবারিকভাবে অশান্তি দেখা দেয়।এ সব দিক চিন্তা করে আমাদের মাদকের বিরুদ্ধে এগিয় যেতে হবে।মাদকের বিরুদ্ধে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছেন এটি বাস্তবায়ন করতে হলে সকলকে সচেতন হতে হবে।

আমি যেভাবে ধূমপান, তামাক,মাদকমুক্ত তেমনিভাবে আপনে ধূমপান, মাদক সম্পর্কে সচেতন হলে তথা মাদক বিরোধী হলে এভাবে ব্যক্তি থেকে পরিবার, পরিবার থেকে সমাজ,সমাজ থেকে দেশ মাদক মুক্ত হবে।অর্থাৎ সবার আগেই ব্যক্তিকে সচেতন হতে হবে। তাইতো

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের কবিতায় লিখেছেন”

আমরা যদি না জাগি মা

কেমনে সকাল হবে?

তোমার ছেলে উঠলে মা গো

রাত পোহাবে তবে।”

লেখকঃ মোঃ রাহিমুল ইসলাম, প্রভাষক, সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত মহিলা কলেজ

সংবাদটি শেয়ার করুন

অনলাইন জরিপ

আপনি কি মনে করেন পাঠ্যবইইয়ের শরিফ থেকে শরিফা গল্পটি অপসারণ করা প্রয়োজন?
×

এই বিভাগ থেকে পড়ুন